সব
facebook raytahost.com
কেএনএফের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান শুরু | Protidiner Khagrachari

কেএনএফের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান শুরু

কেএনএফের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান শুরু

অশান্ত পাহাড়

ডেস্ক রিপাের্ট:: বান্দরবানে পাহাড়ের নতুন সশস্ত্র গোষ্ঠী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) বিরুদ্ধে যৌথ সাঁড়াশি অভিযান শুরুর কথা জানিয়েছে র‍্যাব। শুক্রবার (৫ এপ্রিল) বেলা ১১টায় বান্দরবান জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব জানায়, শুক্রবার থেকে কেএনএফ নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত সেনাবাহিনী, র‍্যাব, বিজিবি ও পুলিশের সমন্বয়ে গঠিত এই যৌথ অভিযান চলবে। জঙ্গিবিরোধী অভিযানের মতো পাহাড়ে সন্ত্রাসীদের দমনে সব ধরনের কৌশল অবলম্বন করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযানের বিস্তারিত তুলে ধরেন র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম বিভাগের সহকারী পরিচালক খন্দকার আল মঈন। তিনি বলেন, গত কয়েক দিনে ব্যাংক ডাকাতি ও অস্ত্র লুটের ঘটনার উদ্দেশ্য হলো টাকা লুটপাট ও অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়া এবং সক্ষমতা প্রদর্শন করার মাধ্যমে কেএনএফ তাদের সমর্থক ও প্রতিদ্বন্দ্বী সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর কাছে নিজেদের শক্তিশালী সশস্ত্র গোষ্ঠী হিসেবে প্রমাণ করতে চেষ্টা করছে ।

এর আগে কেএনএফ সন্ত্রাসীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার সুযোগ দিয়ে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একটি শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটি গঠন করা হয় । কিন্তু কেএনএফ সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হয়ে ব্যাংক ডাকাতি, অপহরণ, অস্ত্র লুট, পুলিশ ক্যাম্পে গুলিবর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজারের বিষয়টি উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, গত সোম ও মঙ্গলবারে রুমা ও থানচি উপজেলায় ব্যাংক ডাকাতি ও লুটপাট হয়েছে। ব্যাংক ম্যানেজারকে অপহরণ করে সন্ত্রাসীরা। তাকে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। সম্মিলিত সাঁড়াশি অভিযানে কেএনএফ সন্ত্রাসীদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। লুট করে নেওয়া ১৪টি অস্ত্র উদ্ধারসহ তাদের নির্মূল করা হবে।

বান্দরবানের দুই উপজেলায় মঙ্গলবার রাতে ১৭ ঘণ্টার মধ্যে দুটি ব্যাংকের তিনটি শাখায় হামলা, অস্ত্র লুট ও অপহরণের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) রাতে থানচি থানা লক্ষ্য করে গুলি করেছে সশস্ত্র গোষ্ঠী। পরে গভীর রাতে আলীকদম উপজেলায় পুলিশ ও সেনাদের একটি যৌথ তল্লাশিচৌকিতে হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে বান্দরবানের রুমা উপজেলা সদরে সোনালী ব্যাংকে ডাকাতি, ব্যাংক ম্যানেজারকে অপহরণ এবং পুলিশ ও আনসারের ১৪টি অস্ত্র লুটের ঘটনায় কেএনএফ জড়িত বলে ধারণা করছে পুলিশ। অপহৃত সোনালী ব্যাংকের ম্যানেজার নিজাম উদ্দিন প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ছাড়া পেয়েছেন।

উল্লেখ্য, সশস্ত্র সংগঠন কেএনএফ রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি ও রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম এলাকায় ২০২২ সালে তৎপরতা শুরু করে। এর মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্কীয়া জঙ্গিগোষ্ঠীকে পাহাড়ের গোপন আস্তানায় প্রশিক্ষণ দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

সেই বছরের অক্টোবরে কেএনএফ ও জঙ্গিদের বিরুদ্ধে র‍্যাব ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সম্মিলিত অভিযান পরিচালনা করে। পরে কেএনএফ সদস্যদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার জন্য ২০২৩ সালের ২৯ মে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা মারমার নেতৃত্বে শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটি গঠন করা হয়। গত বছরের ৫ নভেম্বর ও গত ৫ মার্চ দুই দফা কমিটির বৈঠকে কেএনএফ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড না করার প্রতিশ্রুতি দেয়।

আপনার মতামত লিখুন :

কেএনএফ সদস্য নিহত, অস্ত্র উদ্ধার

কেএনএফ সদস্য নিহত, অস্ত্র উদ্ধার

বান্দরবানে দুই কেএনএফ সদস্য নিহত

বান্দরবানে দুই কেএনএফ সদস্য নিহত

পাহাড়ের তিন উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত

পাহাড়ের তিন উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত

তিন নারী কারাগারে

তিন নারী কারাগারে

বান্দরবানে কেএনএফ সদস্য নিহত

বান্দরবানে কেএনএফ সদস্য নিহত

গণগ্রেপ্তারের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ

গণগ্রেপ্তারের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন  
সম্পাদক ও প্রকাশক : সৈকত হাসান
বার্তা সম্পাদক : মো: আল মামুন সিদ্দিক
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা।
ফোনঃ ০১৮৩৮৪৯৯৯৯৯
ই-মেইল : protidinerkhagrachari@gmail.com
© ২০২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। Design & Developed By: Raytahost .com